অফিডিয়ান | পর্ব – ৬১

হঠাৎ তার অ্যাপার্টমেন্টের দরজায় নক পড়লো। লোক টা খাওয়া থামিয়ে দরজায় নক দেওয়া ব্যাক্তি টাকে ভেতরে আসার অনুমতি দিলো। আর তখনি অ্যাপার্টমেন্টের ভেতর হন্তদন্ত হয়ে প্রবেশ করলো দুজন যুবক। ঢুকেই তাদের ভেতর থেকে একজন লাঞ্চরত ব্যাক্তি টার উদ্দ্যেশ্যে ইংরেজিতে বলে উঠলো, — ম্যাথিউ আপনার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বস।

১৬ বছর বয়স | পর্ব – ৩৪ (Shawon is acting strange)

আমি নিজের ঠোঁট কামড়ে ধরে চোখ বন্ধ করে নিলাম। শাওন মুখ সরিয়ে নিয়ে আবার আমার দিকে তাকালো। আমি আস্তে আস্তে চোখ খুললাম কিন্তু চোখ নামিয়ে রাখলাম। ওনার দিকে তাকালাম না। বরং এখন আমার শরীর রীতিমতো কাপছে।
লাভার নাকি ভিলেন - সিজন ২

লাভার নাকি ভিলেন | সিজন – ২ | পর্ব – ২৭

নাবিল সামিরাকে মন প্রানে ভালবেসে ফেলেছে। নাবিলের ধারনা বিয়ের পর সে ফিরে এলে সব আবার আগের মত ঠিক হয়ে যাবে।

ভালোবাসি তোমায় | পর্ব – ২

ডাইনিং টেবিলে বসে আছে হুর। মিসেস হেনা হুরকে খাবার সার্ভ করছেন। হুরের একটুও খাওয়ার ইচ্ছে নেই। কিন্তু এখন না খেলে মিসেস হেনা উ’ল্টা’পা’ল্টা চিন্তা শুরু করবেন। এমনিতেই তাকে অনেক ক’ষ্টে বুঝিয়েছে হুর যে সে ঠিক আছে এখন।হুর জো’ড় করে খাওয়া শুরু করলো। যতো না খাচ্ছে তারচেয়ে বেশি নাড়ছে।

ইট পাটকেল | পর্ব – ৬

আকাশে মেঘ জমেছে। যেকোনো সময় আকাশ ভেঙে বৃষ্টি হবে।দমকা বাতাসে চারিদিকের গাছপালা দুলে দুলে উঠছে। বারান্দায় বসে একমনে সামনের কৃষ্ণচুরা গাছের দিকে তাকিয়ে আছে নূর।কৃষ্ণচুরা ফুলে গাছটি নতুন সাজে সেজেছে। সেদিকেই মুগ্ধ হয়ে তাকিয়ে আছে নূর।

অঙ্গনে হৃদরঙ্গন | পর্ব – ১১

হসপিটাল থেকে ফেরার পথে সারাটা পথ মনের সাথে আলাপ করেছে সে। যে মেয়েটা তার যত্ন নিতে ব্যস্ত ছিলো দিনের পর দিন, তাকে সে কিভাবে এতোটা আঘাত করতে পারলো! তার সকল কাজ অনায়াসে করে দিতো মেয়েটা, আর তাকেই কি না সে এতোটা মেরেছে!

হৃদ রোগ | পর্ব – ২৫ | সর্বশেষ সারপ্রাইজ পর্ব

হিমাদ্র বাইক চালাচ্ছে আর সুদেষ্ণা পিছনে বসে চাতক পাখির ন্যায় এদিক-ওদিক তাকাচ্ছে । হিমাদ্র লুকিং গ্লাসে দেখছে তার প্রিয় রমনীকে।
বাইজি কন্যা

বাইজি কন্যা | পর্ব – ৬৩

-'আমি মরে যাইনি ভাই। সৃষ্টিকর্তা আমাকে যে হালে রেখেছেন এতেই আমি সন্তুষ্ট। আমি কোন কৃত্রিমতা নিয়ে ওর কাছে ফিরতে চাই না। বরং সৃষ্টিকর্তা আমায় যেটুকু দান করেছেন সেটুকু নিয়েই বীরের মতো মাথা উঁচু করে যেতে চাই।

ফ্লোরেনসিয়া – ৩৮

উলের সুয়েটারের নিচে লুকিয়ে রাখা ক্রুশ লকেট'টা ইনায়া বাম হাতে শক্ত করে চেপে ধরে। আব্রাহামের সেদিকে খেয়াল নেই। সে কেবলই ধীরপায়ে হাঁটে। ইনায়া তাকে অদৃশ্য মায়াজালে টানছে। কেনো এতো মায়া এই মেয়েটার মুখশ্রীতে? শুধু কি মায়া? আছে নির্মলতা। আব্রাহামের মনে হয়, পবিত্রতার প্রতীক সে।

অঙ্গনে হৃদরঙ্গন | পর্ব – ৮

পরদিন সকালে তাকে বেতন দেওয়া হলো চার হাজার টাকা। থাকার জায়গা, খাওয়াদাওয়ার পরও চার হাজার টাকা পেয়ে ভীষণ খুশি শ্রাবণ। সে বুঝতে পারছে, এখন সাদাফের কাছে বোধহয় ভালো টাকা আছে তাইতো এতো দিলো। সাদাফ বেরিয়ে যাওয়ার পর শ্রাবণও বের হলো বাজারের উদ্দেশ্যে। এদিকের পথঘাট তার অচেনা।
আমি পদ্মজা

আমি পদ্মজা | পর্ব – ৫

লাহাড়ি ঘর দু’ভাগ করা হয়েছে চাদর টানিয়ে। একপাশের চৌকিতে হেমলতা এবং মোর্শেদ থাকেন। অন্যপাশের চৌকি পদ্মজা,পূর্ণা ও প্রেমার দখলে। লাহাড়ি ঘরের পিছনের দরজা আপাতত প্রধান দরজা হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। পিছনে অনেক কচু গাছ ছিল। হেমলতা মোর্শেদকে নিয়ে জায়গা খালি করেছেন।…

১৬ বছর বয়স | পর্ব – ৩০ (Worth it)

দরজার কাছে তাকাতেই দেখলাম দরজা বন্ধ করা। এটার কি মানে? আর উনি এত যে ঘুমাচ্ছেন! উনি কি আজ অফিস যাবেন না, নাকি? আমি শাওনের কাধে হাত দিয়ে নাড়িয়ে বললাম, “এইযে শুনছেন! উঠুন এখন আর আমার ওড়নাটা দয়া করে ছাড়ুন।”

ইট পাটকেল | পর্ব – ৩৫

আশমিন আমজাদ চৌধুরীর কাছ থেকে কামিনী চৌধুরী কে সরিয়ে নিজের দিকে টেনে নিলো।বাহাদুর কে ইশারায় কিছু বলে কামিনী চৌধুরী কে কোলে নিয়ে সাথে সাথেই বেরিয়ে গেল রুম থেকে। আমজাদ চৌধুরী আশিয়ান তার পিছু নিতে চাইলে তাদের আটকে দিলো বাহাদুর।
আমি পদ্মজা

আমি পদ্মজা | পর্ব – ৮২

পূর্ণা উত্তরে কিছু বললো না। সে ঝরঝর করে কাঁদতে থাকলো। নাকের পানি,চোখের পানি মিলেমিশে একাকার। দৃষ্টি মেঝেতে নিবদ্ধ। পদ্মজার রাগে দুঃখে কান্না পায়। বেসামাল ঘূর্ণিপাকে সে আটকে পড়েছে। প্রতিটি নিঃশ্বাস হয়ে উঠেছে বিষাক্ত।

হৃদ রোগ | পর্ব ১৫

কুয়াশার চাদরে মোড়ানো সুন্দর সকাল, পুরো রাস্তাঘাট ফাঁকা। এখন চলছে নভেম্বর মাসের শেষের দিকে তাই হাড় কাঁপানো শীত এখনো পড়েনি তবে ঘুমানোর সময় লেপ তো লাগেই। এখন ঘড়িতে সকাল ৫ টা’ বেজে ৩০ মিনিট , এই সময় সুদেষ্ণার বাড়ির সবাই ঘুমে কাদা একমাত্র সুদেষ্ণা বাদে । আজকে সুদেষ্ণার ইকোনমিকস পরীক্ষা
লাভার নাকি ভিলেন

লাভার নাকি ভিলেন | পর্ব – ৩৪

মেঘলাঃ এত কিছুর পরেও আমি আপনার মত একটা ভিলেন কে বিয়ে করব না। মেয়েরা কারোর হাতের পুতুল নয় যে যখন তখন জোর করে তাদেরকে বিয়ে করা যায়। আমি করব না আপনাকে বিয়ে। কি হবে বিয়ে না করলে? লোকে আমায় নস্টা…

অফিডিয়ান | পর্ব – ১৩

আজ জানালায় গ্লাস লাগাতে একদমই ভুলে গেছে রুমাইশা। কিন্তু কিচ্ছু করার নেই৷ এখন গ্লাস লাগাতে গিয়ে শব্দ হলেই ও পুরাই শেষ। আপাতত গ্লাসের ভাবনা মাথা থেকে তাড়াতাড়ি সরিয়ে সামনের দিকে মনযোগ দিল ও৷

১৬ বছর বয়স | পর্ব – ৩৮ (আবার ফুলসজ্জা)

শাওন বলল, “দুইদিনের মধ্যে কিভাবে বাচ্চা হবে? আমি ত এখনো কিছুই করি নি?” আমি ওনাকে ঠেলে সরিয়ে দিয়ে চলে যেতে লাগলাম কিন্তু উনি আমার হাত ধরে নিলেন। আমি দ্বিধায় পরে গেলাম আর ওনার দিকে ঘুরলাম। উনি সত্যিই অনেক জ্বালাচ্ছেন আমাকে।

ত্রিধারে তরঙ্গলীলা | পর্ব – ৫৪

গোধূলি বিকেল৷ দু’কাপ চা বানালো ফারাহ৷ সুহাসের ঘরের বেলকনিতে আইয়াজ, সুহাস বসে আছে নিশ্চুপ। চায়ের কাপ দু’টো নিয়ে সেখানেই উপস্থিত হলো সে৷ ভীষণ মাথা ধরেছে সুহাসের৷ আইয়াজের মুখটা এখনো হতভম্ব। চোখের পলকে কতকিছু ঘটে গেল৷ সে নীরব দর্শক হয়েও দোষের ভাগিদার। কেবলমাত্র বন্ধু সৌধর চোখে৷

ত্রিধারে তরঙ্গলীলা | পর্ব – ১২

বিকেল পাঁচটা বেজে ঊনত্রিশ মিনিট৷ ফোনের রিংটোনে সহসা ঘুম ছুটে গেল সৌধর। স্ক্রিনে ‘ নিধি ‘ নামটুকু দেখেই বুক ধক করে ওঠল। সেদিন অল্প কথা-কাটাকাটি হওয়াতে নিধি তার সঙ্গে কথা বলা বন্ধ করে দিয়েছিল। ওর রাগ ভাঙানোর সুযোগ হয়নি আর। রাগ না ভাঙাতেই মেয়েটা কল করেছে! বিশ্বাস করতে পারছিল না।